হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা সার্জারী বা অপারেশনের সাথে সাংঘর্ষিক নয়। তবে সকল ধরণের অপারেশন কে আমরা প্রকৃত অপারেশনের কেস বলে মনে করিনা। পাইলস অপারেশন করলে ২/৪/৫ বছরের মধ্যে হৃদযন্ত্রের সমস্যা হয়, নাকের পলিপ কাটলে টনসিলের সমস্যা হয়, টনসিল কাটলে ফুসফুসের রোগ যা পরবর্তীতে শ্বাসকষ্ট-নিউমোনিয়া-যক্ষ্মায় রূপান্তরিত হয়ে রোগীর অবস্থা জটিল হতে জটিলতর করে ফেলে। মহিলাদের জরায়ুর টিউমার অপারেশন করালে তা পরবর্তীতে ওভারীর টিউমার হয়, ওভারী কাটলে ব্রেস্ট টিউমার হয়। আর এই টিউমার যদি ম্যালিগন্যান্ট হয় তবে তা পুরো শরীরে ছড়িয়ে পড়ে ক্যান্সারের কারণ হতে পারে যাতে রোগীর জীবন সংকটাপন্ন হয়। প্রকৃতপক্ষে অপারেশনের কেস হলে সেটা করাতে হবে। তাতে কোন দ্বিমত নেই। যে গুলো বললাম একটাও অপারেশনের কেস না। আমরা দেখি কেন রোগীর এজাতীয় রোগ হয় সেটা। অর্থাৎ এ জাতীয় রোগ প্রবণতা কেন তার কারণ অনুসন্ধান করে তা চিকিৎসার মাধ্যমে দুর করি। এ্যালোপ্যাথরা কারণ জিইয়ে রেখে ফলাফল কেটে ফেলেন। মূল কথা- হোমিওপ্যাথি লক্ষণভিত্তিক চিকিৎসা। লক্ষণ স্পষ্ট হলে যে কোন রোগই সারবে ইনশাল্লাহ্। স্পষ্ট না পাওয়ার অনেক কারণ আছে যার ভেতর দমনমূলক এ্যালোপ্যাথিক চিকিৎসা উল্লেখযোগ্য। এজাতীয় চিকিৎসায় লক্ষণসমূহের হ্রাস-বৃদ্ধির সুনির্দিষ্ট প্যাটার্ণটি হারিয়ে যায় বা পরিবর্তন হয়ে যায়। অথচ প্রাকৃতিক প্রতিটি রোগে সুস্পষ্ট হ্রাস-বৃদ্ধি থাকে। আর যেসকল হোমিওপ্যাথ একসাথে একাধিক ওষুধ দেয় তারাও রোগীর ক্ষতি করে। তারা না জানে ভালভাবে কেস নিতে, কেস ম্যানেজমেন্টেও তারা দুর্বল। এরা প্রতারক। প্রতারক শ্রেণীর ডাক্তার এ্যালোপ্যাথি, হোমিও, হার্বাল সব ক্ষেত্রেই আছে। সত্যিকারের হোমিওপ্যাথ সময় নিয়ে ধৈর্য সহকারে রোগীর পূর্ণ লক্ষণাবলী জানবেন, স্টাডি করবেন, চিকিৎসা দিবেন। তাতে দ্রুত ফল পাওয়া যায়। একটি জটিল কেস কিভাবে ম্যানেজ করবেন বা পরবর্তী ফলোআপে কি করবেন সে সম্পর্কে হোমিওপ্যাথের স্পষ্ট ধারণা থাকতে হবে। হোমিও ডাক্তারের ব্যর্থতা কখনও হোমিওপ্যাথির ব্যর্থতা নয়। সমস্যা ঐ ব্যক্তিতে যিনি কিছু না জেনে, অসৎ উপায় অবলম্বন করে হোমিওপ্যাথ সেঁজে বসে চিকিৎসা দেন। আর অসততা হলো জ্ঞানের অভাব, রোগীকে সময় না দেয়া, ভালভাবে কেস না নেয়া, ভাল মানের ওষুধ প্রকৃত শক্তি ও মাত্রায় প্রয়োগ না করা ইত্যাদি। হোমিওপ্যাথি চিরসত্য ও বিজ্ঞানসম্মত। এতে কোন সন্দেহ নেই। আমার প্রফেসর জর্জ ভিথোলকাস যিনি বিশ্বের ১ নং হোমিওপ্যাথ, তার কাছে এযাবত হাজার হাজার এ্যালোপ্যাথ, এ্যালোপ্যাথিক চিকিৎসার ক্ষতিকর দিক বিবেচনা করে সফলতার জন্য হোমিওপ্যাথিতে আত্মনিয়োগ করেছেন।

ডাঃ বেনজীর। হোমিওপ্যাথ। এ্যাপায়েন্টমেন্ট গ্রহণ সহ যে কোন প্রয়োজনে ফোন দিনঃ ০১৭৩৩৭৯৭২৫২। আরো জানতে ভিজিট করুনঃ drbenojir.com/contact/

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *