অসুখ বিসুখে আমরা নানা কারণে ভুগি। কিন্তু কোন কোন অসুস্থতা বিশেষ করে ক্রণিক রোগ এর পিছনে এমন কোন কারণ বা ঘটনা আছে যা কেবল গভীর অনুসন্ধানেই জানা যায়। রোগী মূলত: ঐ ঘটনা, রোগভোগ বা কারণটির পর হতেই একটির পর একটি  অসুস্থতায় ভুগতে থাকেন। বলা বাহুল্য হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসায় এমন শত শত কারণ বা ঘটনা আছে যা রোগীর বর্তমান মূল রোগটি সৃষ্টির কারণ। এসব বিষয়ে না জানলে সফল চিকিৎসা দেয়া সম্ভব নয়। আজ এমন কিছু কারণের উল্লেখ করা হলো:

  1. উচ্চাভিলাষি কোন পরিকল্পনা বাস্তবায়নে ব্যর্থ হয়ে অসুখ,
  2. দু:সংবাদ হতে রোগের সৃষ্টি,
  3. নিকটজন যেমন: সন্তান, বাবা-মা, স্বামী-স্ত্রীর-বন্ধুর মৃত্যু জনিত শোক হতে রোগ,
  4. প্রেমে হতাশ বা ব্যর্থ হয়ে বা বিচ্ছেদজনিত পীড়া;
  5. উর্দ্ধতন-অধ:স্তন সহকর্মী বা বাবা-মা ও সন্তান সন্ততির মধ্যে বাক বিতন্ডার রেশ ধরে রোগ,
  6. পিতা-মাতা কর্তৃক সন্তানের উপর অতিরিক্ত খবরদারি,
  7. ইমোশনাল শক হতে সৃষ্ট রোগ,
  8. অতিরিক্ত যৌনাচারজনিত রোগ,
  9. বহুদিন যাবৎ যৌনকাংখা দমন জনিত রোগ,
  10. ব্যবসায়িক ক্ষতি বা দেউলিয়াত্ব হতে রোগ,
  11. সম্মানহানি বা অপমানিত হওয়া বা সুনামহানির কারণে রোগ,
  12. বন্ধাত্বের কারণে হৃদয়ভংগ হয়ে রোগ,
  13. অতিরিক্ত দায়-দায়িত্ব পালনের কারণে রোগ,
  14. অধ্যয়ন, রোগীর সেবা ইত্যাদি কারণে অধিক দিন ধরে নির্ঘুম রাতযাপনজনিত রোগ,
  15. ধর্ষণ বা বলাৎকার বা অনবরত যৌন হয়রানির শিকার হওয়ার কারণে রোগের উৎপত্তি,
  16. শিশুকালে ঘন ঘন তীব্র সংক্রামক রোগের আক্রমণজনিত কারণে এ্যান্টিবায়োটিকের পুন: পুন: অপব্যবহারজনিত রোগ,
  17. বন্ধাত্বের চিকিৎসাগ্রহণ বিশেষত: হরমোনাল থেরাপি দ্বারা চিকিৎসা গ্রহণ,
  18. টিকাদানের কুফলজনিত রোগ,
  19. অতিমাত্রায় রোগদমনমূলক ওষুধ সেবনের কারণে রোগ,
  20. দারিদ্র্যের মধ্যে দীর্ঘদিন বসবাস যেখানে যথোপযুক্ত খাদ্য, নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্যকর পরিবেশের ঘাটতি জনিত রোগ দেখা দেয়,
  21. এ্যালোপ্যাথিক চিকিৎসায় চর্মরোগ দমনজনিত রোগ,
  22. নানাপ্রকার তেজষ্ক্রিয় রশ্মির প্রভাবজনিত রোগ,
  23. অতিরিক্ত মদপানের ইতিহাস হতে রোগের উৎপত্তি,
  24. খাদ্যে বিষক্রিয়ার প্রভাবজনিত রোগ,
  25. শরীর হতে অত্যাবশ্যকীয় তরলের অতিরিক্ত ক্ষরণ হতে রোগ ইত্যাদি।

হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসায় কেস টেকিং এর সময় প্রাপ্ত এ সকল তথ্য সফল চিকিৎসা দিতে হোমিওপ্যাথকে সহায়তা করে। মজার বিষয় হলো এদের অধিকাংশ তথ্যই আমরা ল্যাবটেস্ট হতে পাইনা বরং রোগী বা তার আত্মীয় পরিজনের নিকট হতে জানতে পারি।

Dr. Benojir, Homeopath. Contact

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *