ডিমেনশিয়া: ডিমেনশিয়ায় রোগীর মানসিক ক্ষমতাগুলির কম-বেশী বা সম্পূর্ণ দুর্বলতাপ্রাপ্ত হয় অথচ এসবই এক সময় স্বাভাবিক ছিল।

কারণ: ডিমেনশিয়ার প্রধান কারণ- মস্তিষ্কের রোগ। এছাড়া সিফিলিস, টিউমার ইত্যাদি। বার্ধক্য এবং মৃগীরোগের কারণে উন্মাদনার শেষ রুপ হিসেবেও অনেক সময় ডিমেনশিয়া দেখা দেয়। আধুনিককালে স্ট্রেস ডিমেনশিয়ার একটি উল্ল্যেখযোগ্য কারণ।

উপসর্গ: মানসিক শক্তি হ্রাস। বাছ-বিচারের ক্ষমতা হ্রাস তথা বিচার প্রতিবন্ধী। রোগীরা প্রথমদিকে ভুলে যায়, তারপর এক পর্যায়ে স্মৃতি সম্পূর্ণভাবে চলে যায়। তারা মারাত্মকভাবে আবেগপ্রবণ। তারা দূরে সরে যায় একসময় হারিয়ে যায়। তারা দিশেহারা হয়ে পড়ে। এরা অশ্লীল কাজে আগ্রহ দেখায় যেমন- হস্তমৈথুন করে। এদের ভেতর বিভ্রম ও হ্যালুশিনেশন দেখা দেয়।

হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা ব্যবস্থা যেহেতু হলিস্টিক সেহেতু রোগীর সার্বিক শারীরিক-মানসিক লক্ষণ বিশ্লেষণ করে চিকিৎসা দিলে রোগীর অবস্থার প্রভুত উন্নতি সাধিত হয়ে থাকে।

Leave a Reply

Please sing in to post your comment or singup if you don't have account.
Need Help?